মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

গ্রাম পুলিশ গণের দায়িত্ব

গ্রাম পুলিশের দায়িত্ব ও কর্তব্য

গ্রাম পুলিশের  প্রত্যেক সদসস্যের যে কোন নাম বা উপাধিতে সম্বোধন করা হোকনা কেন তারা স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পষিদ) অধ্যাদেশ ১৯৮৩ এর তফসিল-১ এর ২য় অংশে বর্নিত ক্ষমতা প্রয়োগ করবেন এবং কর্তব্য পালণ করবেন। গ্রাম পুলিশের দায়িত্ব ও কর্তব্য নিমরূপ :-

১। তিনি দিনে ও রাতে ইউনিয়নে পাহারা ও টহলদারী করিবেন।

২। অপরাধের সংগে সংশ্লিষ্ট সকল বিষয় অনুসন্ধান ও দমন করবেন এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করতে সাধ্যমত পুলশিকে সহায়তা করবেন।

৩। চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদকে সরকারি দায়িত্ব পালন করতে সহায়তা করবেন।

৪। অন্য নির্দেশ না থাকলে প্রতি পনের দিন অন্তর এলাকার অবস্থা সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন।

৫। ইউনিয়নের খারাপ চরিত্রের লোকদের গতিবিধি লক্ষ্য করবেন। মাঝে মাঝে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন।

৬। ইউনিয়নের লুকিয়ে থাকা কোন ব্যক্তি যার জীবন ধারনের জন্য প্রকাশ্য কোন আয় নেই বা যে তার নিজের পরিচয় সমপর্কে সন্তোষ জনক কোন জবাব দিতে পারেনা এমন লোক সম্পর্কে থানার ভার প্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট রিপোর্ট করবেন।

৭। থানার ভার প্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সে সকল বিষয়ে অবহিত করবেন যা বিরোধ, দাংগা, হাঙ্গামা, বা তুমুল কলহ সৃষ্টি করতে এবং জনগণের শান্তি বিঘ্নিত করতে পারে।

৮। ইউনিয়নের নিম্ন লিখিত অপরাধ সংগঠন বা সম্পাদনের অভিপ্রায় সম্পর্কে কোন তথ্য অবহিত হলে তা অনবিলিম্বে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন, যেমন -

                      ক) দাংগা-হাংগামা

                      খ) গোপনে মৃতদেহ সরিয়ে জন্ম সংক্রান্ত তথ্য গোপন করা

                      গ) কোন শিশুকে বাড়ি হতে বের করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া

                      ঘ) আগুনের সাহায্যে সংগঠিত ক্ষতি

                      ঙ) বিষ প্রয়োগে গবাদি পশুর অনিষ্ট বা ক্ষতি করা

                      চ) নরহত্যা বা আত্মহত্যার প্রচেষ্টা এবং উপরে উল্লেখিত অপরাধ সংগঠন বা অপরাধ সংঘঠন করার প্রচেষ্টা।

৯। উপরে উল্লেখিত অনুচ্ছেদে বর্নিত অপরাধ অথবা আদালতে গ্রহনযোগ্য যে কোন অপরাধ বন্ধ করতে বা বন্ধ করার উদ্দেশ্যে মধ্যস্থতা করার ক্ষেত্রে যথাসাধ্য চেষ্টা করা।

১০। জন্ম ও মৃত্যু রেজিষ্টার সংরক্ষন এবং এলাকার সব জন্ম ও মৃত্যু সম্পর্কে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করবেন।

১১। মানুষ বা পশু বা ফসলের মধ্যে কোন মহামারী বা সংক্রামক রোগ বা পোকার আক্রমন ব্যাপক আকারে দেখা দিলে তাৎক্ষনাৎ ইউনিয়ন পরিষদকে এ সম্পর্কে অবহিত করবেন।

১২। কোন বাধে বা সেচে ক্ষতি বা ত্রুটি দেখা দিলে অনতিবিলম্বে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করবেন।

১৩। সরকারি কাজের উদ্দেশ্যে যে কোন স্থানীয় তথ্য সরবরাহ করবেন।

১৪। খাজনা অথবা ভূমি উন্নয়ন কর, স্থানীয় কর, ফি বা অন্য পাওনা সংগ্রহ ও আদায়ে তিনি রাজস্ব কর্মচারীদের সহায়তা করেবন।

১৫। অধ্যাদেশের অধিনে কোন অপরাধ সংগঠন বা সংগঠনের অভিপ্রায় সম্পর্কে জ্ঞাত হলে বা জানতে পারলে তা ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করবেন।


Share with :
Facebook Twitter